What is Eshram card, Eshram card benefits, Eshram card registration process, Eshram card Rules in bengali

৩০০০ টাকা পেনশনের সহ লক্ষাধিক টাকার বীমা জন্য এখনই আবেদন করুন

e-SHRAM কার্ড কি ? ( What is e-SHRAM Card ?)

৩৮ কোটি অসংগঠিত শ্রমিকদের জন্য e-SHRAM পোর্টাল চালু করেছে কেন্দ্র। ইতিমধ্যেই এর সুবিধা পেতে শ্রমিকদের নাম ও তথ্য নথিভুক্তের কাজ শুরু হয়েছে দেশে। কেন্দ্রের তরফে জানান হয়েছে e-SHRAM card থাকলেই একাধিক সুবিধা পাবেন শ্রমিকরা। এই e-portal এর মাধ্যমে নির্মাণকার্জের শ্রমিক, পরিযায়ী শ্রমিক, হকার, পরিচারকের মতো দেশের অসংগঠিত ক্ষেত্রের শ্রমিকদের বিভিন্ন সামাজিক সুরক্ষামূলক প্রকল্পের আওতায় আনা হবে।

এই পোর্টালটির উদবোধনের সময় কেন্দ্রীয় শ্রমমন্ত্রী ভূপেন্দ্র যাদব জানিয়েছিলেন, এই পোর্টালের সাহায্যে বহু অসংগঠিত শ্রমিককে সরকারি স্কিমের সুবিধা দেওয়া হবে। দেশে এই প্রথম এমন একটি ব্যবস্থা চালু করা হয়েছে, যা শ্রমিকদেরকে সরাসরি কেন্দ্রীয় সরকারের সঙ্গে যুক্ত করবে। রেজিস্ট্রেশনের পরে, শ্রমিকদের একটি ইউনিভার্সাল অ্যাকাউন্ট নম্বর (ইউএএন)-সহ একটি ই-শ্রম কার্ড দেওয়া হবে। যাতে তাঁরা যে কোনও সময় এই কার্ডের মাধ্যমে বিভিন্ন সামাজিক সুরক্ষা স্কিমের সুবিধাগুলি অ্যাক্সেস করতে পারবে।

e-SHRAM card এর সুবিধা গুলো কি কি ? (e-SHRAM Portal Benefits)

১. নতুন এই পোর্টালে নিজেদের নাম রেজিস্টার করে সুবিধা পেতে পারেন দিন মজুর, পরিযায়ী শ্রমিক, পরিচারিকা-পরিচারক ছাড়াও ফুটপাথের দোকানিরা। মূলত ৩৮ কোটি অসংগঠিত ক্ষেত্রের শ্রমিকদের ডেটাবেস তৈরি হবে এই পোর্টালের মাধ্যমে।

২. এই পোর্টালে রেজিস্টার করতে ১৪৪৩৪ টোল ফ্রি নম্বর দেওয়া হয়েছে শ্রমিকদের জন্য। কোনও কারণে শ্রমিকরা নাম নথিভুক্ত করতে না পারলে এই নম্বরে পাওয়া যাবে সমাধান।

৩. নিজের আধার কার্ড নম্বর ও ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টসের ডিটেইলস দিয়ে এই পোর্টালে রেজিস্টার করতে পারেন শ্রমিকরা।এখানে নাম নথিভুক্ত করতে জন্মের তারিখ, মোবাইল নম্বর, শহর, গ্রাম বা সোশ্যাল ক্যাটিগরি জানাতে হবে।

৪. একবার এই পোর্টালে নাম নথিভুক্ত করলে e-SHRAM card দেবে কর্তৃপক্ষ। যেখানে নির্দিষ্ট ১২ সংখ্যা দেওয়া থাকবে কার্ডে। কেন্দ্রীয় সরকারের সামাজিক সুরক্ষা প্রকল্পে কাজে লাগবে এই কার্ড।

৫. কার্ডের Universal Account Number সারা দেশে গ্রহণযোগ্য বলে গণ্য করা হবে।

৬. অসংগঠিত ক্ষেত্রের শ্রমিক, BOCW কর্মী, SHG সদস্য, ঘরের পরিচারক, ASHA কর্মী, অঙ্গনওয়াড়ি কর্মী, ফুটপাথের দোকানি, রিক্সা চালক, ইটভাটার শ্রমিক, খেত মজুর, মনরেগার কর্মী, মৎস্যজাবী ছাড়াও ছেটা দোকানিরা নিজেদের নাম এই পোর্টালে অন্তর্ভুক্ত করতে পারবেন।

৭. কোনও কারণে শ্রমিকের দুর্ঘটনায় মৃত্যু হলে পরিবারকে ২ লক্ষ টাকা দেওয়া হবে।পাশাপাশি দুর্ঘটনায় ব্যক্তি বিকলাঙ্গ হয়ে গেলে সরকারের তরফে একই টাকা দেওয়া হবে। তবে দুর্ঘটনায় ব্যক্তি আংশিক শারীরিকভাবে অক্ষম হলে ১ লক্ষ টাকা দেবে কেন্দ্র।

ই-শ্রম পোর্টালে রেজিস্ট্রেশনের জন্য প্রথমে https://www.eshram.gov.in/-এ যেতে হবে। এরপর আধার নম্বর, ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের তথ্য ও মোবাইল নম্বর-সহ গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়ে রেজিস্টার করাতে হবে।

কীভাবে করবেন e Shram Portal Registration ?

১. প্রথমে এই সাইটে গিয়ে https://www.eshram.gov.in রেজিস্ট্রেশন করতে লগ ইন করুন।

২. এখানে “Register on e-Shram” সেকশন দেখতে পাবেন আপনি।

৩. একবার এখানে ক্লিক করলে https://register.eshram.gov.in/#/user/self এই জায়গায় পৌঁছে দেবে সাইট।

৪. e Shram Portal পোর্টালে রেজিস্ট্রশেনের ক্ষেত্রে আধার নম্বর, আধার লিঙ্কড অ্যাকটিভ মোবাইল নম্বর, ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট ডিটেইলস দিতে হবে পোর্টালে।

৫. রেজিস্ট্রশেনের জন্য আবেদনকারী শ্রমিকের বয়স ১৬-৫৯ বছর হতে হবে। এর ঊর্ধ্বে কোনও ব্যক্তির নথিভুক্তিকরণ করা হবে না।

e-SHRAM card এ কারা কারা আবেদন করতে পারবেন (Who Can Apply e-SHRAM card) ?

প্রধানমন্ত্রী অসংগঠিত শ্রমিকদের জন্য ই-শ্রম পোর্টাল চালু করেছেন। এই পোর্টালে আবেদন করলে কৃষক/শ্রমিক/লেবার/টোটো-অটো চালক/ড্রাইভার/কন্ডাকটর/নির্মাণ কর্মী/প্রাইভেট টিচার/আশা কর্মী/অঙ্গনওয়াড়ি কর্মী/রিকশাচালক, রাস্তার বিক্রেতা, মিড-ডে মিল খাবার শ্রমিক, হেড লোডারস, ইট ভাটা শ্রমিক, মুচি, রাগ বাছাইকারী, গৃহকর্মী, ওয়াশার পুরুষ, গৃহ ভিত্তিক কর্মী, নিজস্ব হিসাব কর্মী, কৃষি শ্রমিক, নির্মাণ শ্রমিক, বিড়ি শ্রমিক, তাঁত শ্রমিক, চামড়া শ্রমিক, অডিও-ভিজ্যুয়াল শ্রমিক বা অনুরূপ অন্যান্য পেশায় যুক্ত শ্রমিক থেকে শুরু করে প্রায় সমস্ত অসংগঠিত শ্রমিকেরা এখানে আবেদন করতে পারবেন।

e-SHRAM card এ কারা কারা আবেদন করতে পারবেন না ?

ই-শ্রম কার্ডের জন্য আবেদন করার শর্তঃ-

১) অসংগঠিত শ্রমিকদের বয়স ১৬ থেকে ৫৯ বছরের মধ্যে থাকতে হবে। এই কার্ডের জন্য ছেলে/মেয়ে সবাই আবেদন করতে পারবেন।

২) মাসিক ইনকাম ১৫ হাজার টাকা কিংবা তার কম থাকতে হবে।

৩) EPF/NPS/ESIC এর সদস্য হলে আবেদন করতে পারবেন না।

৪) আর আপনি যদি income tax দিয়ে থাকেন তাহলে এর লাফ পাবেন না।

ই-শ্রম কার্ডে আবেদন করলে কি কি সুবিধা পাবেন আপনি?

PM-SYM এ আবেদন করলে আপনার বয়স যখন ৬০ বছর হবে তখন প্রতি মাসে ৩০০০ টাকা করে আপনার একাউন্টে চলে আসবে। এর পাশাপাশি যদি আপনার মৃত্যু হয় তাহলে আপনার স্বামী/স্ত্রী প্রতি মাসে ১৫০০ টাকা করে পাবে।এর লাভ নিতে গেলে আপনাকে কিছু টাকা(৫০%) দিতে হবে তবে সেই টাকা কোথাও গিয়ে জমা করতে হবে না,অটোমেটিক আপনার একাউন্ট থেকে কেটে নিবে।

আবেদন পদ্ধতিঃ– আবেদন করার জন্য লাগবে-

১) আধার কার্ড।
২) মোবাইল নাম্বার।
৩) ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট নাম্বার।

আবেদন করার জন্য CSC center এ যেতে হবে কিংবা PM-SYM এর ওয়েবসাইটে গিয়েও নিজে আবেদন করতে পারবেন।

ই-শ্রম কার্ডের জন্য আবেদন করতে হবে আপনাকে অনলাইনে। আপনি সম্পূর্ণ বিনামূল্যে ই-শ্রম কার্ডের জন্য আবেদন করতে পারবেন। যদি আপনার আধার কার্ডের সাথে মোবাইল নাম্বার লিংক থাকে তাহলে আপনি ঘরে বসে অনলাইনে মোবাইলে আবেদন করতে পারবেন ফ্রিতে ই-শ্রম কার্ডের জন্য।

আর আপনার আধার কার্ডের সাথে যদি মোবাইল নাম্বার লিংক না থাকে তাহলে আপনাকে নিকটবর্তী তথ্য মিত্র কেন্দ্রে(CSC) যেতে হবে।সেখানে আধার কার্ড ও ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট নাম্বার ও মোবাইল নাম্বার নিয়ে যেতে হবে।তারা আপনাকে E Shram Card বানিয়ে দিবে সম্পূর্ণ বিনামূল্যে সাথে সাথেই।

ই-শ্রম কার্ডের জন্য আবেদন করলে ও কার্ড যদি আপনার থাকে আপনি অনেক সুবিধা পেয়ে যাবেন। নিম্নে তা বিস্তারিত আলোচনা করা হলোঃ-

Pradhan Mantri Shram Yogi Maan-Dhan (PM-SYM) Pension Yojana সুবিধা পাবেন।


FAQs on e-Shram Card Online Registration 2021 (প্রশ্নোত্তরে e-Shram কার্ড)

প্রশ্ন : e-Shram কার্ড কতদিন বৈধ ?
উত্তর: এই e-Shram কার্ডটি অসংগঠিত শ্রমিকদের জন্য যারা e-Shram পোর্টালে নাম নথিভুক্ত করেছেন তাদের এই কার্ডটি আজীবনের জন্য স্থায়ী এবং বৈধ বলে গণ্য করা হবে|

প্রশ্ন : ই শ্রম কার্ডের অনলাইন আবেদন করার জন্য কোনো অসংগঠিত শ্রমিকের বয়স কত হবে ?
উত্তর: তার বয়স ১৬ থেকে ৫৯ বছরের মধ্যে হতে হবে।

প্রশ্ন : এখনো পর্যন্ত কত অসংগঠিত শ্রমিক নাম নথিভুক্ত করিয়েছে eshram.gov.in এ ?
উত্তর: বর্তমানে নথিভূক্ত শ্রমিকের সংখ্যা 6,52,80,447 এর বেশি।

প্রশ্ন : e Shram Portal এ কত দিনের মধ্যে অনলাইনে কার্ডটি পেতে পারি ?
উত্তর: আবেদন প্রক্রিয়া সম্পন্ন হওয়ার কিছুক্ষণের মধ্যেই আপনি আপনার কার্ড টি ডাউনলোড করতে পারবেন

প্রশ্ন : eSHRAM Card অনলাইনে আবেদন করতে গেলে রেজিস্ট্রেশন ফি হিসেবে কত টাকা দিতে হবে ?
উত্তর: কোন অর্থই লাগবেনা| সম্পূর্ণ বিনামূল্যে আপনি অনলাইনে আবেদন করতে পারেন|

প্রশ্ন : e Shram Portal এ কোন যোগাযোগ বা সাহায্যকারী ফোন নাম্বার বা ইমেইল আইডি আছে ?
উত্তর: টোল-ফ্রি নম্বর হল 14434 হিন্দি, ইংরেজি, বাংলা, তামিল, কন্নড়, মালয়ালম, মারাঠি, ওড়িয়া, তেলেগু এবং অসমীয়া ভাষায় উপলব্ধ৷ আপনি eSHRAM পোর্টাল ইমেল আইডিতে যোগাযোগ করবেন: eshram-care@gov.in

প্রশ্ন : ব্যাংকের পাসবুক থাকা কি একান্ত আবশ্যক আবেদন করার জন্য ?
উত্তর: হ্যাঁ আবেদন করার জন্য আপনাকে অবশ্যই আপনার ব্যাংকের পাস বই নিয়ে অনলাইনে আবেদন করতে যেতে হবে|

Background of E Shram Card

Name of the Web Portal : E Shram Portal for NDUW
Launched By : Government of India
Beneficiaries : Unorganized workers
Article category : E Shram Card Registration
Objectives : National Database of Unorganized Workers
E Shram Card Download mode : Online
UAN E shram Online Status Checking : Ongoing
Total Registered Shramik : 6,52,80,447 count so far
eShram Helpline Toll Free Number : 14434 (Monday to Saturday between 8:00 AM to 8:00 PM)
Official web portal : eshram.gov.in / register.eshram.gov.in

How to log in into E Shram Online Portal?

Here I provide the step by step guide for login into the e Shram Online Portal. You can follow these steps for E-Shram card online registration in 2021.

Step 1) To log in to the present E Shramik portal, you’ve got to first attend the official website register.eshram.gov.in.

Step 2) After that on the house page, you’ve got to pick the choice of ‘Self Registration‘. After selecting subsequent page will open.

Step 3) In that, you’ve got to enter your mobile number which is linked with an Aadhar card.

Step 4) After that, you’ve got to fill within the captcha code.

Step 5) After filing, you’ve got to pick the choice of YES / NO for EPFO and ESIC.

Step 6) Then you’ve got to click on ‘Send OTP‘.

Step 7) Now you’ll receive an OTP. Enter the OTP within the asked Section.

Step 8) Now you’ll be asked to enter your Aadhar Card number and Accept the terms and conditions and click on the Submit button.

Step 9) The application form will open ahead of you, you’ve got to fill it.

Step 10) Then after filling all the documents even have to be uploaded.

Step 11) After making it click on submit and take the text of the appliance form for future reference.

Who Can Apply on E Shram Online Portal

Here is the list of all applicable persons, who can eligible for E-Shram card online registration.
Sharecroppers Brick Kiln workers
Labelling and Packing
Vegetable and fruit vendors
Migrant Workers
House Maids
Carpenters Sericulture Workers
Small and Marginal Farmers
Agricultural labours
Street Vendors
ASHA Workers
Milk Pouring Farmers
Salt workers
Auto drivers
Sericulture workers
Barbers
Newspaper vendors
Rickshaw pullers
Fisherman Saw Mill workers
Animal husbandry workers
Tannery workers
Building and Constructions workers
Leather workers
Midwives
Domestic workers

People Also Search for:
e-SHRAM
e-Shram card
e-SHRAM Registration
e-SHRAM Registration process in bengali
E-Shram Seva
How to Register for e-SHRAM Card
e shram card benefits in bengali